সহজে হয়ে উঠুন একজন সফল ফ্রিল্যান্সার

উন্নত কিংবা উন্নয়নশীল যেকোনো দেশেই বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং বহুল আলোচিত একটি বিষয়। 
এই বিশাল সংখ্যক মানুষের অধিকাংশ বিভিন্ন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং কাজ শুরু করেছে। ইতিমধ্যে অনেকে এই কাজে সফলভাবে কাজ করতে সাফল্য লাভ করেছে।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোর মধ্যে প্রতিযোগিতাও বেড়েই চলেছে প্রতিনিয়ত। আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার ডটকম, ফাইভার প্রভৃতি মার্কেটপ্লেসগুলো তাদের মধ্যে অন্যতম।
আপনিও হতে পারেন, একজন সফল ফ্রিল্যান্সার। কিছু ব্যাপার মাথায় রেখে
সময়কে সঠিক ভাবে কাজে লাগিয়ে পরিশ্রম করলে আপনিও সফল হওয়ার আশা করতে পারেন।

ঠিক কাজটি নির্বাচন করা

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে কোনো ক্লাইন্টের প্রজেক্ট নেওয়া আগে প্রজেক্ট সম্পর্কে জেনে রাখা, ক্লাইন্ট সম্পর্কে, ক্লাইন্ট এর রেটিং কিরকম আছে, ক্লাইন্ট  এর ব্যাপারে অন্যদের রিভিউ কী বলে ইত্যাদি খেয়াল করুন। ক্লাইন্টের সাথে পেমেন্ট কিংবা অন্য সমস্যার সৃষ্টি হলে, সার্পোট এর যোগাযোগ করুন।

নতুন কিছু শেখা

কথায় বলে, শেখার কোনো বয়স নেই। বিশ্বের সাথে আপডেটেড থাকা, নিজের স্কিল বাড়ানোর টেস্ট দেওয়া, নতুন কমিউনিটির সাথে যুক্ত হওয়া, একে অপরের সাথে কমিউনিকেশন এর দক্ষতা বাড়ানো ইত্যাদি বিষয়গুলোর দিকে নজর দেওয়া।

সময়ের সঠিক ব্যবহার

একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে, আপনাকে সময়ের সঠিক ব্যবহার জানতে হবে। কোনো একটি প্রজেক্ট নেওয়ার সাথে, আপনার সময়কে সাজিয়ে নিন যাতে করে এর সঠিক ব্যবহার সম্ভব হয়। এতে করে সময় মত ক্লাইন্ট এর কাজ শেষ করতে কোনো বেগ পেতে হবে না। সময়ানুবর্তিতা এবং দায়িত্বশীলতা ফ্রিল্যান্সিং এর ক্ষেত্রে খুবই জরুরি।

নিজের সম্পর্কে জানা

উপরের প্রতিটি জিনিস বাদেও, সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, নিজের সম্পর্কে জানা। নিজের যোগ্যতা, যে বিষয় আপনার আগ্রহ আছে তা, আপনার দুর্বলতা, আপনার নিজের পারদর্শিতা সম্পর্কে সম্যক ধারণা রাখতে হবে এবং সেই অনুযায়ী কোনো ক্লাইন্টের প্রজেক্ট নিতে হবে।

উক্ত ব্যাপারগুলো মাথায় রেখে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারলে আপনি ফ্রিল্যান্সিং জগতে সফল হতে পারবেন। নিজের সময়কে সঠিক ভাবে কাজে লাগিয়ে পরিশ্রম করলে আপনি সফল হওয়ার আশা করতে পারেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।