গবেষণার কাজে ব্যবহার করা হবে ফেইসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের তথ্য

ফেইসঅ্যাপ

বর্তমান সময়ে ফেইসঅ্যাপ ব্যবহার করে নিজেদের চেহারা বদল করে বুড়ো হওয়ার ট্রেন্ড চলছে। আর তা করতে গিয়ে প্রায় ১৫ কোটি ব্যবহারকারীরা খেয়েছে ধরা।

ফেইসঅ্যাপ ব্যবহার করার জন্য নিজেদের তথ্য প্রদান করতে হয়। ব্যবহারকারীদের থেকে শুরুতেই নাম, গ্যালারি পারমিশন নিয়ে থাকে। সেই সকল তথ্য ও ফোনের ছবি তাদের সার্ভারে জমা করছে।

ব্যবহারকারীরা যদি পারমিশন দিয়ে থাকে তাহলে তাদের সার্ভারে জমা হওয়া সকল তথ্য ও ছবি যেকোনো কাজে ব্যবহার করতে পারবে। এমনকি পারমিশন নেওয়ার সময় এই শর্তটি উল্লেখ করা ছিলো। তবে আমরা তা না পড়েই পারমিশন দিয়ে নিজেদের তথ্য ৩য় পক্ষের হাতে তুলে দিয়েছি।

ফেইসঅ্যাপ বানিয়েছে রাশিয়ান প্রতিষ্ঠান ওয়্যারলেস ল্যাব। তারা এই অভিযোগের পর জানিয়েছে, এটি খুব ভয়ংকর নাও হতে পারে। কারণ গবেষণার কাজ শেষে ৪৮ ঘণ্টা পর ব্যবহারকারীর তথ্য মুছে ফেলা হবে।

আর যদি তথ্যগুলো মুছে দেওয়া না হয় তাহলে আমাদের কিছু করার থাকবে না। কারণ আমরা আগেই অনুমতি দিয়ে দিয়েছি তারা যেকোনো কাজে এই সকল তথ্য ব্যবহার করতে পারবে।

এখন দেখার বিষয় ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার মতো বড় ধরণের তথ্য বেহাতের ঘটনা ঘটে কিনা। যদি ঘটে তাহলে এবার আমাদের দেশের অনেকের তথ্য বেহাত হতে চলছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।